কিডনি সমস্যা

কিডনি সমস্যা থাকলে যে নিয়ম অবশ্যই মানতে হবে

লাইফস্টাইল ডেস্ক:

শরীরের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলোর মধ্যে একটি হলো কিডনি। শরীরের টক্সিন বের করে দেওয়াই অঙ্গটির মূল কাজ। ফলে কিডনি সুস্থ রাখা অত্যন্ত জরুরি। যদি কিডনিতে সমস্যা হয় তাহলে এর প্রভাব পড়বে শরীরের অন্য সকল অঙ্গপ্রত্যঙ্গেও। একটি সময়ে সকল অঙ্গ বিকল হতে শুরু করবে। তাই আামদের সুস্থ থাকতে কিডনিকে সর্বপ্রথম সুস্থ রাখতে হবে।

যদি কিডনির রোগ ধরা পড়ে তাহলে আমরা সর্বদাই সর্তকভাবে জীবনযাপন করতে হবে। যাতে কিডনির রোগ শরীরের অন্য অঙ্গের উপরে ছড়িয়ে যেতে না পারে। বিশেষ করে লক্ষ করতে হবে আপনি কি খাচ্ছেন। কারণ এই রোগ থাকলে পছন্দমতো সকল খাবার খাওয়ার সুযোগ থাকেনা। অনেক নিয়ম মেনে খাবার খেতে হবে।

চিকিৎসকদের মতে, যেসকল ব্যক্তিদের কিডনীতে রোগ রয়েছে তারা বিশেষ করে সোডিয়াম আর ফসফরাস-সমৃদ্ধ খাবার বেশি না খাওয়াই উচিৎ। বাইরের প্রক্রিয়াজাত খাবারে সোডিয়াম আর ফসফরাসের উপাদান অনেক বেশি থাকে। ফলে প্যাকেটজাত খাবার বেশি না খাওয়াই ভালো।

এছাড়াও প্রতিদিনকার পাতে কমাতে হবে লবণ খাওয়ার পরিমাণও। প্রোটিন ও দুগ্ধজাত খাবারের পরিমাণের দিকে লক্ষ রাখতে হবে। মাছের ক্ষেত্রে এক বেলা একটা ছোট টুকরো মাছ খেলেই যথেষ্ট।

দিনে মাছ কিংবা মাংস খেলে রাতে আর কোনো প্রোটিন খাওয়া যাবে না। ডাল, দুধ, পনিরও বেশি খাওয়া উচিৎ হবে না। পাশাপাশি পটাশিয়ামের মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করাও জরুরি। অন্যথায় কিডনি রোগের পাশাপাশি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও বেড়ে যাবে।

কমলালেবু বা বাতাবি লেবুর মতো কোনো টক ফল খেলেও বাড়তে পারে সমস্যা। কিডনির রোগীদের খাদ্যতালিকা বানাতে হবে কিছু নির্দিষ্ট খাবার দিয়ে। মনে রাখতে হবে, শরীরের টক্সিন ও বর্জ্য যত কম তৈরি হয়, এমন খাবার বাছাই করতে হবে।

বাঁধাকপি বা ডিমের সাদা অংশ খেতে পারেন। প্রোটিনজাতীয় খাবার যে একেবারেই খাওয়া যাবে না, ঠিক এরকম নয়। তবে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণে খেতে হবে। সে বিষয়ে সরাসরি চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করা একান্ত জরুরি।

কিডনি রোগীদের পানি পানের পরিমাণ বাড়াতে হবে। পানিতেই সবচেয়ে ভালো থাকবে কিডনি। কিডনি রোগীদের দিনে এক লিটার পানি পান করতে বলা হয়। সেই সাথে যতটা সম্ভব তরল খাবার খাওয়ারও পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসক।

বেশি শক্ত খাবার খেলে হজমের সমস্যা হতে পারে। পানি এবং তরল খাবার বেশি করে খেতে হবে।

শেয়ার করুন: