বদলে যাচ্ছে মানব সভ্যতার ইতিহাস

ইলন মাস্কের বড় ঘোষণা, বদলে যাচ্ছে মানব সভ্যতার ইতিহাস

প্রযুক্তি ডেস্ক :

ইলনমাস্ক বর্তমান বিশ্বে আলোচিত একটি নাম। টেসলা, স্পেসএক্স, সোলার সিটি এবারে হাইপারলুপসহ এবারে মানুষের মস্তিষ্কে বিশেষ চিপ বাসানোর কাজ করছে তার প্রতিষ্ঠান। যা সরাসরি কম্পিউটারের সাথে কানেক্ট হতে পারবে।

বিষয়টি শুনে কল্পনা বা গল্পের মতো মনে হলেও আগামী ৬ মাসের মধ্যে এই অসম্ভবকে সম্ভবে পরিণত করার ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন ধনকুব ইলনমাস্ক।

তার দাবি প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে মানুষ আরও শক্তিশালী হয়ে উঠবে তাই ইতোমধ্যেই কাজ চালাচ্ছে তার নিউরালিঙ্ক সংস্থা।

বিষয়টি নিয়ে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, যদি এই প্রযুক্তি সম্ভব হয় তাহলে মানব সভ্যতার ইতিহাস বদলে যাবে।

মার্কিন সংস্থা নিউরালিঙ্কের পক্ষ থেকে জানায়, মানুষের মস্তিষ্কের ভিতরে ছোট্ট একটি কম্পিউটিং ডিভাইস বসানো হবে। যার আকার হবে কয়েনের মতো এবং এটি আগামী ৬ মাসের মধ্যেই সম্ভব হয়ে যাবে।

ছোট্ট এই কম্পিউটার চিপটি সরাসরি মস্তিষ্কের সাথে যুক্ত থাকবে। এই প্রোডাক্টের বিষয়ে মার্কিন নিয়ামক সংস্থার কাছে আবেদনও করা হয়েছে। অনুমোদন পেলেই ইমপ্ল্যান্টের কাজ শুরু করা হবে বলে জানায় ইলন মাস্কের সংস্থা নিউরালিঙ্ক।

বর্তমানে এই চিপের কার্যকারিতা পরীক্ষা করার জন্য বাঁদরের মাথায় বসানো হয়েছে। এই বিষয়টি নিয়ে ইলন বলেন,‘যেকোনো প্রোটোটাইপ তৈরি করা সহজ। কিন্তু সুরক্ষিত প্রোডাক্ট তৈরি খুবই কঠিন বিষয়।’

নিউরালিঙ্ক কী ভাবে কাজ করে তা একটি মঞ্চে দেখিয়েছেন ইলন। সেখানে একটি বাদরের মাথায় এটি ব্যবহার করা হয়েছিল। দেখা যায় কিবোর্ড স্পর্শ না করেই মস্তিষ্কের মাধ্যমে টাইপিং করছে বাঁদরটি।

ইলন মাস্ক বলেন, আমি কখনই চাইব না আইফোন ১৪ বাজারে আসার পরেও আপনি আইফোন ১ মাথায় নিয়ে ঘুরে বেড়ান। তাই মস্তিষ্কের এই ডিভাইসটি আপগ্রেড করার জন্য সব ধরনের সুযোগ থাকবে।

শুধুমাত্র মস্তিষ্ক নয়, শরীরের অন্যান্য অংশেও এই ডিভাইস বসানোর কাজ চলছে। মার্কিন ধনকুপ জানিয়েছেন এই মুহূর্তে একাধিক ডিভাইস তৈরির কাজ করছেন তার সংস্থার বিজ্ঞানীরা। মস্তিষ্ক ছাড়াও মেরুদণ্ডে এই চিপ ইমপ্ল্যান্টের চিন্তা ভাবনা চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভয়েসনিউজ/কেএ

শেয়ার করুন: